Sun- Thur : 09:00 - 17:00
info@frcbd.org
+88 02 48810289

ফাইনান্সিয়াল-রিপোটিং-আইন

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ ঢাকা, ২৫ ভাদ্র, ১৪২২/০৯ সেম্পম্বর, ২০১৫ সংসদ কর্তৃক গ্রহীত নিন্মলিখিত আইনটি ২৫ ভাদ্র, ১৪২২ মোতাবেক ০৯ সেপ্টম্বর, ২০১৫ তারিখে রাষ্ট্রপতির সম্মতিলাভ করিয়াছে এবং এতদ্বারা এই আইনটি সর্বসাধারণের অবগতির জন্য প্রকাশ করা যাইতেছে:-২০১৫ সনের ১৬নং আইন জনস্বার্থ সংস্থাসমুহের ফাইনান্সিয়াল রিপোটিং কার্যক্রমকে একটি সুনিয়ন্ত্রিত কাঠামোর আওতায় আনয়ন, হিসাব ও নিরীক্ষা পেশার স্ট্যান্ডার্ডস প্রণয়ন, যথাযথ প্রতিপালন, বাস্তবায়ন, তদারকি এবং এতদসংক্রান্ত অন্যান্য কার্যাবলী সম্পাদনের নিমিত্ত একটি কাউন্সিল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিধান প্রণয়নকল্পে প্রণীত আইনযেহেতু, জনস্বার্থ সংস্থাসমূহের ফাইনান্সিয়াল রিপোটিং কার্যক্রমকে একটি সুনিয়ন্ত্রিত কাঠামোর আওতায় আনয়ন, হিসাব ও নিরীক্ষা পেশার স্ট্যান্ডার্ডস প্রণয়ন, যথাযথ প্রতিপালন, বাস্তবায়ন তদারকি এবং এতদসংক্রান্ত অন্যান্য কার্যাবলী সম্পাদনের নিমিত্ত একটি কাউন্সিল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিধান করা সমীচীন ও প্রয়োজনীয়;

সেহেতু, এতদদ্বারা নিন্মরুপ আইন করা হইল যথা:-

প্রথম অধ্যায়

প্রারম্ভিক

১। সংক্ষিপ্ত শিরোনামও প্রবর্তন।- (১) এই আইন ফাইনালিয়াল রিপোটিং আইন, ২০১৫ নামে অভিহিত হইবে।

(২) এই আইন অবিলম্বে কার্যকর হইবে।

আরও পড়ুন
দ্বিতীয়  অধ্যায়

কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা, গঠন, ইত্যাদি

৩। কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা।- (১) এই আইন প্রবর্তনের পর সরকার, সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা, ফাইনান্সিয়াল পিপোটিং কাউন্সিল নামে একটি কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা করিবে।  (২) কাউন্সিল একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা হইবে এবং

আরও পড়ুন
 তৃতীয়  অধ্যায়

কাউন্সিলের চেয়ারম্যান, কর্মকর্তা ইত্যাদি

১০। বাছাই কমিটি।- (১) সরকার, সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা, চেয়ারম্যান ও নির্বাহী পরিচালক পদে নিয়োগের সুপারিশ প্রদানের উদ্দেশ্যে নিন্মরুপে একটি বাছাই কমিটি গঠন করিবে, যথা :-     (ক) বাংলাদেশ মহা হিসাব-নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক         -সভাপতি;

আরও পড়ুন
চতুর্থ অধ্যায়

কাউন্সিলের কর্মবিভাগ, দায়িত্ব, কোড ইত্যাদি

২২। কাউন্সিলের কর্ম বিভাগ।- (১) এই আইনের উদ্দেশ্য পূরণকল্পে, নিন্মবর্নিত বিভাগসমূহ সমম্বয়ে কাউন্সিলের কর্ম বিভাগ গঠিত হইবে, যথা :-

(ক) মানদ- নির্ধারণী বিভাগ (ঝঃধহফধৎফং ঝবঃঃরহম উরারংরড়হ);

আরও পড়ুন
পঞ্চম  অধ্যায়

তালিকাভুক্তি, নবায়ন ইত্যাদি

৩১। নিরীক্ষকদের তালিকাভুক্তি।- (১) আপাততঃ বলবৎ অন্য কোন আইনে যাহা কিছুই থাকক না কেন, এই আইন বলবৎ হইবার পর কোন নিরীক্ষক বা কোন নিরীক্ষা ফার্ম কাউন্সিলের নিকট তালিকাভুক্তি ব্যতীত কোন জনস্বার্থ সংস্থার নিরীক্ষক হিসাবে নিয়োগ লাভের যোগ্য ইবেন না বা নিরীক্ষা সংক্রান্ত কোন সেবা প্রদান করিতে পারিবেন না।

আরও পড়ুন
৬ষ্ঠ  অধ্যায়

স্ট্যান্ডার্ডস নির্ধারণ ও পরিবীক্ষণ, প্রকাশনা ইত্যাদি

৪০। স্ট্যান্ডর্ডস প্রণয়ন, ইত্যাদি।- (১) কাউন্সিল, জনস্বার্থ সংস্থাসমূহের জন্য পেশাদর একাউন্টিং সেবা প্রদানের লক্ষ্যে-

(ক) ইন্টারন্যাশনাল একাউন্টিং স্ট্যান্ডর্ড বোর্ড কর্তৃক জারিকৃত ইন্টারন্যাশনাল একাউন্টিং স্ট্যান্ডর্ড ্র সহিত সঙ্গতি রাখিয়া ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং স্ট্যান্ডর্ডস; এবং

আরও পড়ুন
সপ্তম অধ্যায়

অপরাধ, তদন্ত, জরিমানা ও দ-, আপীল ইত্যাদি

৪৮। অপরাধ ও দ- ইত্যাদি।- যদি কোন ব্যক্তি এই আইন বা তদধীন প্রণীত বিধি, প্রবিধান, গাইডলাইন, স্ট্যান্ডার্ডস বা নির্দেশনায় উল্লিখিত কোন শর্ত ভঙ্গ অথবা অসাধু পন্থী অথবা মিথ্যা তথ্য প্রদানের মাধ্যমে নিরীক্ষক হিসাবে নিবন্ধন লাভ করেন অথবা

আরও পড়ুন
অষ্টম  অধ্যায়

কাউন্সিলের আর্থিক বিষয়াদি

৫৫। কাউন্সিলের তহবিল।- (১) ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিল তহবিল নামে কাউন্সিলের একটি তহবিল থাকিবে এবং উহাতে নি¤œবর্ণিত অর্থ জমা হইবে, যথা;-(ক) সরকার কর্তৃক প্রদত্ত অনুদান;

আরও পড়ুন
নবম  অধ্যায়

কতিপয় আইনের আনুষঙ্গিক সংশোধন

৫৯। চ.ঙ.ঘড়. ২ ড়ভ ১৯৭৩ এর সংশোধন।- ইধহমষধফবংয ঈযধৎঃবৎবফ অপপড়ঁহঃধহঃং ঙৎফবৎ, ১৯৭৩ (চ.ঙ. ঘড়. ২ ড়ভ ১৯৭৩) এর-(ক) অৎঃরপষব ২ এর  পষধঁংব (১) এর ংঁন পষধঁংব (ফ) এর পর নিন্মরুপ

আরও পড়ুন
দশম অধ্যায়

বিবিধ

৬৬। অন্য আইনের অধীন ব্যবস্থাকে ক্ষণœ না করা।- (১) এই আইন, বিধি বা প্রবিধান এর অধীন গৃহীত কার্যধারা বা ব্যবস্থা অন্য কোন আইনের অধীন গৃহীত ব্যবস্থার অতিরিক্ত হইবে এবং অন্য আইনের অধীন গৃহীত ব্যবস্থাকে ক্ষণœ করিবে না।

আরও পড়ুন